অফিসে অন্যের কাজের ক্ষতি করছেন না তো?

অফিসে অন্যের কাজের ক্ষতি করছেন না তো?

এখন সবাই ফোন ব্যবহার করেন। প্রযুক্তির উন্নতিতে দৈনন্দিন জীবনে এটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে গেছে। কিন্তু কর্মক্ষেত্রে আপনার ফোন মাঝে মাঝেই বেজে ওঠে। এতে কাজ করা কঠিন হয়ে পড়ে। এছাড়া সোশ্যাল নেটওয়ার্কিংয়ের প্রবল টানে মূল্যবান সময় নষ্ট হয়। ফলে সৃজনশীলতা কমে যায় এবং ভুল হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে। তাই জেনে নিন কীভাবে এই আকর্ষণ থেকে দূরে থাকবেন।

সচেতন হোন: এ সমস্যার জন্য প্রথমেই আপনাকে বিশ্বাস করতে হবে, এ ধরনের আকর্ষণ আপনার কাজের ক্ষতি করছে এবং আপনার মানসিক স্বাস্থ্য নষ্ট করছে। তবে কর্মীদের এ ধরনের ডিজিটাল ডিভাইস অফিসে ব্যবহারের নিয়ম তৈরি করা যেতে পারে। এক ধরনের আচরণবিধি থাকা দরকার।

মিউট অপশন: প্রতিটি ডিভাইসেরই মিউট অপশন রয়েছে। তাই নোটিফিকেশন বন্ধ করে রাখতে হবে। আর গ্যাজেটকে মিউট করে রাখলে এ ধরনের ডিস্ট্র্যাকশন হওয়ার সম্ভাবনা কমবে।

ফোন-ফ্রি ব্রেক: কাজের জায়গায় ডিজিটাল ব্ল্যাক আউট প্রয়োজন। এতে প্রোডাক্টিভিটি নষ্ট হবে না, মানসিক অশান্তিও কমবে। তাই কর্মীদের উচিত ফোন-ফ্রি ব্রেক নেওয়া। কাজের সময়ে সেলফোন ব্যবহার করা একেবারেই চলবে না।

অন্যের ক্ষতি না করা: কর্মস্থলে আপনার ডিভাইস নিয়ে কী করবেন, সেটা ভালোভাবে বুঝে নিন। অন্যের কাজের বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। ডেস্কে স্পিকার ফোন ব্যবহার করবেন না। গান শুনতে হেডফোন ব্যবহার করুন। ডিভাইসটি ভাইব্রেটার মুড বা লো রিঙ্গিং ভলিউমে রাখুন।

অফিসের সাহায্য নিন: ডিজিটাল ডিটক্সের জন্য অফিসের সহায়তা চান। আপনার কর্মস্থলে নিশ্চয়ই এমন ব্যবস্থা আছে, যা আপনাকে বলে দেবে অফিসে আপনি কতক্ষণ প্রোডাক্টিভ থাকছেন। এটি জানলেই ডিটক্স হবে।

সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করুন