বার্ষিক প্রাথমিক বিদ্যালয় শুমারি-২০২০ কাজ করবেন প্রাথমিকের শিক্ষকরা

চলতি বছরের জুনে শুরু হতে যাচ্ছে বার্ষিক প্রাথমিক বিদ্যালয় শুমারি ২০২০। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা এ শুমারির তথ্য সংগ্রহের কাজ আগামী ৩০ জুনের মধ্যে শেষ করবেন।

এই তথ্য অনলাইন এপিএসসি সফটওয়্যারে এন্ট্রি করতে সব উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গতকাল সোমবার (১৮ মে ২০২০) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর থেকে এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করা হয়।

এতে বলা হয়েছে, বার্ষিক প্রাথমিক বিদ্যালয় শুমারি (এপিএসসি)-২০২০ এর তথ্য সংগ্রহের নিমিত্তে ফরম ও অনলাইন সফটওয়্যার প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের ওয়েবসাইটে ইতোমধ্যে আপলােড করা হয়েছে। বার্ষিক প্রাথমিক বিদ্যালয় শুমারি-২০২০ এর তথ্য সংগ্রহে সফটওয়্যারে ৩০ জুনের মধ্যে ডাটা এন্ট্রি করতে হবে। নির্দেশনায় ডাটা এন্ট্রি করার প্রক্রিয়ার বিস্তারিত বিবরণ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর।’

২০০৫ সাল থেকে দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রতি বছর এই শুমারি চালানো হয়। এতে প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্ট নানান তথ্য উঠে আসে।
এর আগে গত রবিবার (১৭ মে ২০২০) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের এক নির্দেশনায় বলা হয়েছে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চলতি বছরের ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির তথ্য এন্ট্রি, শিক্ষদের বদলি সংক্রান্ত পদায়ন (অধিক্ষেত্র অনুযায়ী) কার্যক্রম সম্পন্নকরণ এবং নতুন নিয়ােগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের প্রােফাইল নিবন্ধন সম্পন্ন করতে নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। আগামী ৩০ মে’র মধ্যে এ কাজ সম্পন্ন করতে নির্দেশ দিয়েছেন অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সারা বাংলাদেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০২০ সালের ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি কার্যক্রম ২৮ ফেব্রুয়ারি শেষ হয়। এছাড়া জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত নীতিমালা অনুযায়ী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়। অতি সম্প্রতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন শিক্ষক নিয়ােগ করা হয় এবং নবনিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকরা

নির্দেশনায় আরও বলা হয়, ই-প্রাইমারি স্কুল সিস্টেমে তথ্য হালনাগাদকরণ একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। এ ধারাবাহিকতায় ২০২০ সালের ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির তথ্য এন্ট্রি, শিক্ষক বদলি সংক্রান্ত পদায়ন (অধিক্ষেত্র অনুযায়ী) কার্যক্রম সম্পন্নকরণ এবং নতুন নিয়ােগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের প্রােফাইল এন্ট্রি দ্রুততার সাথে সম্পন্ন করা অত্যন্ত জরুরি।