রক্তচক্ষু নিয়ে সমুদ্রে ফুঁসছে ‘সুপার সাইক্লোন’ আমফান

রক্তচক্ষু নিয়ে সমুদ্রে ফুঁসছে ‘সুপার সাইক্লোন’ আমফান

শক্তি বেড়েই চলেছে । বুধবার বিকেলের পর স্থলভাগে আছড়ে পড়বে ঘূর্ণিঝড় ‘আমফান’ । আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হিসেবে আছড়ে পড়বে আমফান । ঝড়ের গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ১৯০ কিলোমিটার । বাংলাদেশের হাতিয়া দ্বীপের মধ্যবর্তী এলাকা ও পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

আবহাওয়া দফতরের তরফে বলা হয়েছে, সোমবার বেলা ১২টা নাগাদ পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে আমফান চরম শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হিসেবে অবস্থান করছিল। এই সময় অভ্যন্তরীণ ঝড়ের গতিবেগ হয় প্রতি ঘণ্টায় ২০০-২৩০ কিলোমিটার।

Ad by Valueimpression
সন্ধ্যার মধ্যে আমফান, সুপার সাইক্লোন বা অতি প্রবিল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। মধ্য বঙ্গোপসাগর থেকে অভিমুখ পরিবর্তন হতে পারে উত্তর উত্তর-পূর্বদিকে। সেই সময় এই ঘূর্ণিঝড়ের আভ্যন্তরীণ গতিবেগ ঘন্টায় ২০০-২২৫ কিলোমিটার হবে। আশঙ্কা বাঁক নেওয়ার পর আজ রাতেই ঘূর্ণিঝড়ের গতিবেগ সর্বোচ্চ ২৬৫ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ এই ঝড়ের আভ্যন্তরীণ গতিবেগ একটু কমে হবে ঘণ্টায় ২৫৫ কিলোমিটার। এরপর সুপার সাইক্লোন ধীরে ধীরে সামান্য শক্তিক্ষয় করে চরম শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। মধ্য বঙ্গোপসাগর, উত্তর বঙ্গোপসাগরে তখন অবস্থান করবে আমফান। সেই সময় গতিবেগ ২০০-২৩০ কিলোমিটার আভ্যন্তরীণ গতিবেগ হবে।

বুধবার সকালে উত্তর, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে ঝড়ের আভ্যন্তরীণ গতিবেগ থাকবে ১৮০-২১০ কিলোমিটার। বিকেলে উপকূলে আছড়ে পড়ার সময় গতিবেগ পৌঁছাতে পারে ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটার পর্যন্ত। নিউজ১৮

সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করুন