২০০ পরিবারের পাশে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সালমা

২০০ পরিবারের পাশে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সালমা

২০০ পরিবারের পাশে – করোনা ভাইরাসে প্রা’দুর্ভাব এখন সারা বিশ্বে। বাংলাদেশের মানুষও ভাইরাসের কারণে এখন ঘরবন্দি। যার ফলে দিনমজুররা পড়েছেন সব থেকে বিপাকে। ফু’রিয়ে গেছে অনেকের ঘরের খাবার। এমন দু’র্দিনে সেই সব দুস্থ মানুষদের সাহায্যে এগিয়ে আসছেন শোবিজ তারকারা। তারই ধারাবাহিকতায় এবার করোনায় অ’সচ্ছল মানুষদের পাশে দাঁ’ড়ালেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মৌসুমি আক্তার সালমা ও তার স্বামী সানাউল্লাহ নূর সাগর। তাদের সেবামূলক প্র’তিষ্ঠান ‘সাফিয়া ফাউন্ডেশন ফর এডুকেশনাল ডেভেলপমেন্ট(SFED)’। এ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে গতকাল থেকে ঢাকা ও আশে-পাশের অ’সহায় মানুষদের মাঝে খাবার বি’তরণ করেন সালমা। ২০০ পরিবারের মধ্যে নিজ হাতে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বিতরণ করেন সালমা। এ প্রসঙ্গে সালমা বলেন, আমরা খুঁজে খুঁজে দরিদ্র মানুষদেরকেই সহায়তা দিচ্ছি। যাতে প্র’কৃতদের উপকার হয়। করোনাভাইরাসের কারণে সবাই ঘরে আ’টকে আছেন। এর ফলে দিনমজুররাই বেশি বি’পদে পড়েছেন। কারণ তাদের হাতে কোন কাজ নেই।

এমন মানুষদের সহায়তা করার জন্য আমরা এই উদ্যো’গ নিয়েছি। সবারই উচিত, দেশের এমন প’রিস্থিতিতে সামর্থ্য অনুযায়ী স’হযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়া। তাদের একটু সাহায্যে বেঁ’চে যাবে অসং’খ্য পরিবার। অসুস্থ না হলে মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই করোনাভাইরাসে রোগে আক্রান্ত না হলে অথবা এই ভাইরাসে আক্রান্ত কোনো রোগীর সেবা বা পরিচর্যা না করলে মাস্ক না পরার সুপারিশ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। জাতিসংঘের এই অঙ্গসংগঠনটির এক সিনিয়র কর্মকর্তা সোমবার (৩০ মার্চ) এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান। সংস্থাটির জরুরি স্বাস্থ্য কর্মসূচির নির্বাহী পরিচালক ডা. মাইক রায়ান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গণহারে মাস্ক পরার কারণে সম্ভাব্য কোনো সুবিধা রয়েছে বলে নির্দিষ্ট কোনো প্রমাণ এখনো পাওয়া যায়নি। প্রকৃতপক্ষে, মাস্কটি সঠিকভাবে পরা বা সঠিকভাবে ফিট করার অপব্যবহারের কারণে বিপরীতে কিছু হওয়ারই প্রমাণ পাওয়া গেছে। মাস্ক ও অন্যান্য চিকিৎসা সরঞ্জাম নিয়ে মাইক রায়ান আরও বলেন, এছাড়া আরও একটি বিষয় হলো, বৈশ্বিকভাবে এসব সরঞ্জামের ব্যাপক এক সংকট দেখা দিয়েছে। যেসব স্বাস্থ্যকর্মী সামনে থেকে রোগীদের চিকিৎসাসেবা দেওয়ার কাজটি করছেন, বর্তমানে তারাই সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছেন। কেননা তারা প্রতিদিন, প্রতি মুহূর্তে ভাইরাসটির সংস্পর্শে আসছেন। তাদের মাস্ক না থাকার বিষয়টি ভয়াবহ।

সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করুন