করোনা বিপর্যস্ত বিশ্বকে আশার আলো দেখাচ্ছে ব্রিটেন

করোনা বিপর্যস্ত বিশ্বকে আশার আলো দেখাচ্ছে ব্রিটেন

করোনার ভয়াল থাবায় বিপর্যস্ত পুরো বিশ্বকে কিছুটা হলেও আশার আলো দেখাচ্ছে ব্রিটেন। মানবদেহে প্রয়োগ করা ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক সফলতা পেলে আগামী সেপ্টেম্বরেই উৎপাদন এবং সরবরাহের জন্য পুরো প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছে দেশটি। বরাদ্দ করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ অর্থ।

তীব্র সঙ্কটের মধ্যে আশার আলো দেখাচ্ছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনাভাইরাস প্রতিরোধী সম্ভাব্য ভ্যাকসিন। পরীক্ষামূলকভাবে সফল হলে এই সেপ্টেম্বরেই যুক্তরাজ্যের মানুষের কাছে পৌঁছে যাবে বহুল প্রতিক্ষীত এই ভ্যাকসিন।
বৃটেনের বিজনেস সেক্রেটারী অলোক শর্মা বলেন, ‘এই ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ সফল হলে সেপ্টেম্বরেই যুক্তরাজ্যের ৩ কোটি মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়া সম্ভব। ব্রিটেনবাসীর কাছে সর্বপ্রথম এই ভ্যাকসিন পৌঁছাবে বলে আশা রাখছি আমরা।’

ভ্যাক্সিনের এই গবেষণাকে আরো ত্বরান্বিত করতে ব্রিটিশ সরকার নতুন করে ৮ কোটি ৪০ হাজার পাউন্ড অর্থ বরাদ্দ করেছে, পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী এই ভ্যাকসিন উৎপাদন এবং সরবরাহের জন্য চুক্তিও সম্পন্ন করেছে। আশায় বুক বেঁধে এখন অপেক্ষায় আছে পুরো ব্রিটেনবাসী।
ডা. বিশ্বজিত বলেন, ‘আমরা আশা করছি অতিসত্তর ভ্যাকসিন পেয়ে যাবো। আশায় বুক বেঁধে আছি আমরা।’

বিশ্বব্যাপী করোনার প্রকোপ রুখতে প্রাথমিকভাবে ৭০০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন দরকার।
পরিকল্পনা মতো সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী জুলাই মাসের শেষের দিকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে ব্রিটেন – এমনটাই মনে করছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।
তবে, বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পরিকল্পনায় ভুল হলে দ্বিতীয়বার ভয়াল থাবা বসাতে পারে করোনা ভাইরাস।

সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করুন




Do NOT follow this link or you will be banned from the site!